কি’শোরীকে পালাক্রমে ধ’র্ষণ, গ্রে’ফতার ৬

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় কি’শোরীকে (১৬) গণধ’র্ষণের অভিযোগে ছয়জনকে গ্রে’ফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় পোশাক কারখানার শ্রমিক ওই কি’শোরী চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে বাড়ি ফেরার পথে গণধ’র্ষণের শি’কার হয়। পরে রাতে বা’দী হয়ে সে ফতুল্লা মডেল থানায় মা’মলা দা’য়ের করে। মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম ফতুল্লা মডেল থানায় সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান।

গ্রে’ফতাররা হলেন- চাঁদপুরের মতলব উপজে’লার মুক্তিরকান্দি এলাকার মো. সিরাজের ছেলে রাসেল (৩৮), নেত্রকোনার খালিয়াজুড়ির মৃ’ত রুকু মিয়ার ছেলে সুজন মিয়া (২৩), মুন্সীগঞ্জের বিক্রমপুর উপজে’লার মৃ’ত খোরশেদ আলমের ছেলে শাহাদাৎ হোসেন (২২), ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজে’লার বিরামপুরের মো. ফরিদের ছেলে সুমন (২২), নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজে’লার হাদিছুর রহমানের ছেলে মো. রবিন (২৩), শরীয়তপুরের জাজিরা উপজে’লার আব্দুল লতিফের ছেলে মো. আল আমিন (২১)। তারা প্রত্যেকেই ফতুল্লার দাপা ইদ্রাকপুরের বিভিন্ন এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকে।

সংবাদ সম্মেলনে মনিরুল ইসলাম জানান, ভু’ক্তভোগী ওই কি’শোরী চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে বাড়ি ফেরার সময় তাদের পথ অবরোধ করে অ’ভিযুক্তরা। পরে কি’শোরীকে ভয় দেখিয়ে পালাক্রমে ধ’র্ষণ করা হয়। জরুরি সেবা ৯৯৯-থেকে খবর পেয়ে রাতেই পুলিশের কয়েকটি টিম ঘটনাস্থলের আশপাশের এলাকায় অ’ভিযান চালিয়ে অ’ভিযুক্তদের গ্রে’ফতার করে। মঙ্গলবার আ’সামিদের আ’দালতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানান, কি’শোরীকে গণধ’র্ষণের ঘটনায় গ্রে’ফতার ছয়জনকে বিকেলে আ’দালতে হাজির করে পুলিশ। এরা আ’দালতে পৃথকভাবে ১৬৪ ধারায় স্বী’কারোক্তিমূলক জবানব’ন্দি দিয়েছেন। বিকেল ৪টায় নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জু’ডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালতের বিচারক নুরন্নাহার ইয়াসমিন, ফাহমিদা খাতুন, আহমেদ হুমায়ন কবির ও আফতাবুল ইসলাম পৃথক পৃথকভাবে ছয়জনের জবানব’ন্দি রেকর্ড করে তাদেরকে কা’রাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *